শাকিবের সাম্প্রতিক সবচেয়ে খারাপ ব্যবসা করা ছবি ‘নাকাব’

Spread the love

শাকিব খান অভিনীত ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ছবি ‘নাকাব’। ছবিটি সেখানে মুক্তি পেয়েছে গত ২১ সেপ্টেম্বর। একই দিনে সাফটা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশে মুক্তির কথা থাকলেও প্রথমে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমতি মেলেনি।

অনুমতি পেয়ে ২৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীসহ সারাদেশে শতাধিক হলে মুক্তি পায় ছবিটি। আমদানি করে ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তি দিয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া।

ছবি মুক্তির আগে প্রযোজক-পরিবেশকের পক্ষ থেকে এই ছবিকে নানা বিশেষণ দিয়ে বিশেষায়িত করা হলেও বাস্তবে এর দেখা মেলেনি। ছবিটি বাংলাদেশে একদমই ব্যবসা করতে পারেনি বলে জানিয়েছে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা। এর আগে কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গেও ছবিটির মন্দার খবর জানা যায়।

রাজধানীর বলাকা সিনেমা হলে শুক্রবার ব্যবসা কিছুটা হলেও শনিবার থেকে লোক সমাগম কম দেখা যায়। শ্যামলী সিনেমা হলে ব্যবসা মন্দা গেছে।

শ্যামলি সিনেমার হাউজ ম্যানেজার আহসানুল্লাহ হাসান বলেন, আমরা আশা করেছিলাম ছবিটি ভালো চলবে। কিন্তু আশানুরূপ ব্যবসা করতে পারেনি। আমাদের এখানে প্রায় সব ছবিই ভালো চলে। তবে এই ছবিটি কেন চললো না বুঝলাম না। আমাদের এখানে পরিবার নিয়ে লোকজন ছবি দেখতে আসে। ফ্যামিলি ড্রামা, পারিবারিক গল্পের ছবিগুল ভালো চলে। নাকাব ছবিটির ব্যবসা সম্পর্কে বলতে বলতে বলবো ‘খেয়ে দেয়ে সমান সমান।’ অর্থাৎ লাভও হয়নি, লোকসানও হয়নি।

বাংলাদেশ বুকিং এজেন্ট সমিতির সভাপতি সারওয়ার আলি ভুঁইয়া (দিপু) বলেন, শাকিবের সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে খারাপ ব্যবসা করা ছবি নাকাব। শুক্রবার-শনিবার চোখ বন্ধ করে ছবির বিজনেস ভালো হবার কথা। কিন্তু শুক্র-শনিবার ‘নাকাব’ এর মতো বাজে ব্যবসা অন্যান্য সিনেমাতেও হয় না। ছবির মান ও গল্প ভালো ভালো না। দর্শক আপনার আমার মতো বোকা না যে টাকা খরচ করে এমন ছবি দেখবে।

তিনি বলেন, প্রথম সপ্তাহের পুরোটা দিন নাকাবের ব্যবসা মন্দা গিয়েছে। বাধ্য হয়ে দ্বিতীয় সপ্তাহেও অনেক হলে এই ছবি চলবে। কারণ দুই সপ্তাহের জন্যই বুকিং নিয়েছে তারা। তবে দর্শকেরা সামনে হয়তো ভালও ছবি পেতে যাচ্ছে। শোনা যাচ্ছে ‘নায়ক’ ছবিটা ভালো হয়েছে। দেখা যাক। আমরা চাই হলে দর্শক আসুক। দর্শককে ঠকানো ঠিক হবে না।