প্রিয়াঙ্কার এক যুগ

Spread the love

বলিউডের আলোচিত তারকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। ২০০০ সালে ‘বিশ্ব সুন্দরী’ নির্বাচিত হন এই তারকা। এরপর নিজ দেশের পাশাপাশি হলিউডের সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন তিনি। প্রিয়াঙ্কা যেমন একজন সু-অভিনেত্রী, ঠিক সমাজ সেবামূলক কাজেও তার খ্যাতি বিশ্বজোড়া। ২০০২ সালে তামিল ‘ঠামিজান’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তার। এর তিন বছর পরেই শিশুদের উন্নতি ও নিরাপত্তা সংক্রান্ত কর্মকাণ্ডে পরিচালিত জাতিসংঘের বিশেষ সংস্থা ইউনিসেফের সঙ্গে যুক্ত হন নায়িকা। সংস্থাটির হয়ে ২০০৫ সাল থেকে ভারতের জাতীয় পর্যায়ে কাজ শুরু করেন।

দশ বছর এই দায়িত্ব পালনের পর প্রিয়াঙ্কাকে ইউনিসেফের বৈশ্বিক শুভেচ্ছাদূত নিযুক্ত করা হয়। ২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর নিউইয়র্কে ইউনিসেফের সদর দপ্তরে সংস্থাটির ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। শিশু অধিকার নিয়ে কাজ করা আন্তর্জাতিক এ সংস্থাটির সঙ্গে সম্প্রতি প্রিয়াংকার ১২ বছর পূর্ণ হয়েছে। অভিনয়ের পাশাপাশি দীর্ঘ এ সময় ধরে নায়িকা এই দায়িত্বটিও পালন করেছেন সফলতার সঙ্গে। উল্লেখ্য, চলতি বছরের মে মাসে তিনি এসেছিলেন বাংলাদেশে। ইউনিসেফ বাংলাদেশের আমন্ত্রণে ওই সময় তিনি টেকনাফের শাপলাপুর এবং উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। এদিকে প্রিয়াঙ্কা বর্তমানে ব্যস্ত তার বিয়ে নিয়ে। আগামী ১ ডিসেম্বর মার্কিন গায়ক ও অভিনেতা নিক জোনাসের সঙ্গে গাঁটছড়া বাধতে চলেছেন তিনি।