পালিয়ে বিয়ে করলেন পরীমনি

Spread the love

পালিয়ে বিয়ে করেছেন ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনি। পাত্র কামরুজ্জামান রনি নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের নির্দেশক ও সদস্য।

গত ১০ মার্চ রাজধানীর রাজারবাগ এলাকায় পরীমনি ও রনির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এ নবদম্পতি তাদের বিয়ের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ করেন।

জানা গেছে, অভিনেত্রী ও নির্মাতা হৃদি হকের ‘১৯৭১ : সেই সব দিন’ ছবির সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন রনি। ওই ছবিতে অভিনয় করছেন পরীমনি। সেখানে কাজ করতে গিয়েই পরী ও রনির মধ্যে সখ্যতা গড়ে ওঠে। একপর্যায়ে রনিই বিয়ের প্রস্তাব দেন পরীকে। রনির প্রতি পরীরও দুর্বলতা থাকায় সেই প্রস্তাব এড়াতে পারেননি তিনি।

বিয়ের বিষয়ে পরীমনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘প্রায় পাঁচ মাস আগে ছবির গল্প শোনানোর জন্য হৃদি আপুসহ রনি আমাদের বাসায় এসেছিল। তখন আমি তাকে খেয়ালই করিনি। শুটিংয়ে গিয়ে কোথায় থাকব, কীভাবে যাব, সেসব নিয়ে তার সঙ্গে প্রথম আলাপ শুরু হয়। এভাবেই একসময় আমাদের মধ্যে সখ্যতা গড়ে ওঠে।’

ঢালিউডের এ জনপ্রিয় নায়িকা বলেন, ‘মার্চের ৩ থেকে ৭ তারিখ আমরা ঠাকুরগাঁওয়ে শুটিং করি। সেখানে ভীষণ আনন্দে সময় পার হয়ে যায়। ৮ মার্চ ঢাকায় এসে আমি তাকে খুব মিস করছিলাম। পরদিন ৯ মার্চ আমরা দেখা করি এবং সে আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। পরে ওই রাতেই আমরা বিয়ে করে ফেলি।’

লুকিয়ে বিয়ে করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার পরিবারের কেউ বিয়ের ব্যাপারটা জানে না। পালিয়ে বিয়ে করার মজাটা নিতে চেয়েছিলাম। সময় নিয়ে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করব।’

এদিকে রনি তার বিয়ের খবর নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘পরীমনির সঙ্গে বিয়েটা হঠাৎ করে ফেলেছি। বর্তমানে দুজন মংলা বন্দরের পাশে করমজল এলাকায় আছি। এখানে পরীমনি অ্যাডভেঞ্জার অব সুন্দরবন ছবির শুটিং করছে।’

এর আগে প্রায় দুই বছর প্রেম করার পর গত বছরের ১৪ এপ্রিল পরীমনির সঙ্গে বিনোদন সাংবাদিক তামিম হাসানের বাগদান হয়। বাগদানের পর পরীমনি জানিয়েছিলেন, সামনে যেকোনো ১৪ এপ্রিল তারা বিয়ে করবেন। সেভাবেই সবকিছু এগোচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই পরীমনির ফেসবুক পেজ থেকে বাগদানসহ তাদের দুজনের বিভিন্ন সময়ে তোলা অনেক ছবি সরিয়ে ফেলা হয়। পরে গত বছরের ১১ জুন পরী তার বিচ্ছেদের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন।

তখন পরী বলেছিলেন, ‘বাগদান না হলে বুঝতাম না, আমি বিয়ের জন্য একদমই প্রস্তুত না। গোষ্ঠী মেনটেইন করার যে বিশাল হিসাব আছে, সে বিষয়ে আমি ভীষণ অপরিপক্ব। সময়ই কথা বলবে।’

এ ছাড়া তামিমের দিকে অভিযোগের তীর ছুড়ে পরীমনি বলেছিলেন, ‘আমার কাজকে কেউ যদি অসম্মান করে, সেখানে আমি একচুল আপস করব না।’