ঘুরে আসুন কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল থেকে (ভিডিও)

Spread the love

ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল। কলকাতার বিখ্যাত গড়ের মাঠের দক্ষিণ প্রান্তে অবস্থিত একটি স্মৃতিভবন। ১৯০১ সালে ৯৪ বছর বয়সে মহারানী ভিক্টোরিয়া মারা যাওয়ার পর তাঁর স্মৃতির উদ্দেশ্যে সাদা মার্বেল পাথরের এই ভবনটি নির্মিত করা হয়। লর্ড কার্জন এই স্মৃতিসৌধটি নির্মাণের পরিকল্পনা করেন। তাঁর মূল পরিকল্পনার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল বিশাল বাগিচার মাঝে একটি সৌধ এবং সেই সাথে ভারতে ব্রিটিশ শাসনের স্মৃতিবাহী নানা সামগ্রী সমৃদ্ধ একটি জাদুঘর নির্মাণ।

১৯০৬ সালের ৪ জানুয়ারি এই ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন প্রিন্স অফ ওয়েলস হিসেবে ভারত সফরে আসা পরবর্তীকালের রাজা পঞ্চম জর্জ এবং ১৯২১ সালের ২৮ ডিসেম্বর এটি উদ্বোধন করেন তৎকালীন প্রিন্স অফ ওয়েলস ও পরবর্তীকালের রাজা অষ্টম এডওয়ার্ড।

স্মৃতিসৌধটিতে অনেক বৈশিষ্ট্য সমৃদ্ধ একটি সঙ্কর রীতির প্রকাশ ঘটেছে। যেমন, ইতালিয় রীতির মূর্তি, মুগল রীতির গম্বুজ, তাজমহলের ন্যায় সাদা মার্বেলের ব্যবহার, সুউচ্চ উন্মুক্ত স্তম্ভশ্রেণি। সবকিছু মিলিয়ে এটি ঔপনিবেশিক স্থাপত্য শৈলীর এক অপূর্ব নিদর্শন।

ভারতের স্থাপত্য বিস্ময়ের তালিকায়, মহিমার দিক দিয়ে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল শুধুমাত্র তাজমহলের পরেই গণ্য হয়। তবে, স্থাপত্য শৈলীর একত্রীকরণের ভাষায় বলতে গেলে, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল সম্ভবত মহান তাজকেও ছাড়িয়ে যায়।

এটি ক্যূইন্স ওয়ে, কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত।

পৌঁছানোর উপায়

বিমান মাধ্যমে :

নিকটবর্তী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটি হল নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ভায়া ভি.আই.পি. রোড, বিমানবন্দর থেকে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে পৌঁছাতে আপনার প্রায় ৩০ মিনিট সময় লাগবে।

ট্রেনে গেলে :

নিকটবর্তী রেলওয়ে স্টেশন হল হাওড়া রেলওয়ে স্টেশন। রেলওয়ে স্টেশন থেকে গাড়ির মাধ্যমে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে পৌঁছাতে আপনার মাত্র ১৫ মিনিট সময় লাগবে।

মেট্রো রেলের মাধ্যমে :

নিকটবর্তী মেট্রো রেলওয়ে স্টেশন হল ময়দান, যেখান থেকে আপনি কোনও ট্যাক্সি বা স্থানীয় বাসের মাধ্যমে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে পৌঁছাতে পারেন।

কখন যাবেন :

শীতকালে, নভেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারী মাসগুলো সবসময়ই কলকাতা পরিভ্রমণের সেরা সময়। তবে, আপনি যদি কলকাতার বিখ্যাত দূর্গা পূজা উৎসব দেখতে চান, তাহলে একটু আগেও আসতে পারেন। এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যেহেতু এখানকার আবহাওয়া অত্যন্ত উষ্ণ ও আর্দ্র থাকে, তাই এই মাসগুলোকে এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। এছাড়াও জুলাই ও আগস্ট মাসে মুষলধারায় বৃষ্টি হয়। তাই এমাসগুলো এড়িয়ে যেতে হবে।

প্রবেশের টিকিট ও সময়

বাগান ও ভবনটিতে প্রবেশের জন্য আলাদা আলাদা ভাবে টিকিট বিক্রীত হয়। টিকিটের মূল্য খুব একটা বেশি নয়।

মিউজিয়ামটি সোমবার ব্যতীত, সপ্তাহের প্রতিদিনই দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকে। সময়সীমা হল সকাল ১০টা. থেকে সন্ধ্যা ৫টা. পর্যন্ত।