ইতিহাস গড়ার হাতছানি রোনালদোর

Spread the love

লন্ডনের অভিজাত রয়্যাল ফেস্টিভ হলে আজ বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেওয়া হবে ফিফার ‘‌দ্য বেস্ট’‌ পুরস্কার। এই দৌড়ে রয়েছেন তিনজন- ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, মোহাম্মদ সালাহ এবং লুকা মডরিচ। আর টানা ১১ বছর পরে ফিফার মঞ্চে দেখা যাবে না লিওনেল মেসিকে। যদিও অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকবেন বলেই জানা গেছে। পৃথিবীর সেরা ফুটবলার কে? এই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে আজই।

কয়েক মাস আগেই ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে রিয়েল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেন রোনালদো। নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে চান, এমনই জানিয়েছিলেন। যদি তিনি এই পুরস্কার পান, তবে তা হবে রিয়েলকে টানা তৃতীয় বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতানোর জন্যই। ফাইনালে গোল করতে না পারলেও, তাঁর বর্তমান ক্লাব জুভেন্টাসকে কোয়ার্টার ফাইনালে হারাতে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন রোনালদো। এবার এই পুরস্কার জিতলে মেসিকে টপকে ছ’‌বার জেতার কৃতিত্ব অর্জন করবেন রোনালদো। সেইসঙ্গে ‘‌দ্য বেস্ট’‌ ট্রফি জেতারও হ্যাটট্রিক করবেন।

তুলনায় অনেক বেশি এগিয়ে মডরিচ। কিছুদিন আগেই রোনালদোকে টপকে উয়েফার বর্ষসেরা পুরস্কার পেয়েছেন। প্রায় একার কাঁধে দেশকে বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলেছিলেন তিনি। শুধু তাই নয়, মাঝমাঠে রিয়েল এবং ক্রোয়েশিয়ার অন্যতম অস্ত্র মডরিচ প্লে-মেকার হিসেবে কার্যকরী ভূমিকা নিয়েছেন সব জায়গাতেই। ফিফার ওয়েবসাইটে সাক্ষাৎকারে তিনবারের বর্ষসেরা গোলকিপার অলিভার কানও বলেছেন, ‘‌চ্যাম্পিয়ন্স লিগ আর বিশ্বকাপে যেরকম পারফরমেন্স দেখিয়েছে, তাতে এই পুরস্কারের ব্যাপারে মডরিচই ফেবারিট। তবে রোনালদোও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ভাল খেলেছে। সে তুলনায় মেসি কিছুই সেভাবে জিততে পারেনি। বিশ্বকাপেও ওকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।’‌

রোনালদোর মতোই লিভারপুলের হয়ে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন সালাহ। মৌসুমে মোট ৪৪টি গোল করেন তিনি। এর মধ্যেই প্রিমিয়ার লিগেই ৩২টি গোল ছিল, যা রেকর্ড। লিভারপুলের ১১ বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে তুলতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন সালা। যদিও সের্জিও রামোসের সঙ্গে সংঘর্ষে ৩০ মিনিটের বেশি খেলতে পারেননি তিনি। যে কারণে বিশ্বকাপেও ছন্দে ছিলেন না।