আইয়ুব বাচ্চুর শেষ ঠিকানা মায়ের পাশে

Spread the love

কোটি মানুষের মন জয় করা গিটার লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চু। দেশের অসংখ্য তরুণ তাকে দেখেই গিটার কাঁধে নিয়েছে। বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের চর্চাকে যারা জনপ্রিয়তায় পৌঁছে দিয়েছেন তাদের মধ্যে তিনিই অন্যতম।

কিংবদন্তী এই শিল্পীর জন্ম ১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রাম শহরে। ছোটবেলা থেকেই গিটারের প্রেমে পড়েন তিনি। ১৯৯১ সালে বন্ধুরা মিলে গড়ে তুলেন এলআরবি নামে একটি ভিন্ন ধারার ব্যান্ডদল। তার ডাক নাম রবিন। আইয়ুব বাচ্চু একাধারে গীতিকার, সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক। মূলত রক ঘরানার কণ্ঠের অধিকারী হলেও আধুনিক গান, ক্লাসিকাল সঙ্গীত এবং লোকগীতি দিয়েও শ্রোতাদের তিনি মুগ্ধ করেছেন। তিনি তার সংগীত জীবনে সবসময়ই পরিবারের সমর্থন পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার চলে গেলেন তিনি ফেরার দেশে। চট্টগ্রামের এনায়েত বাজার পারিবারিক কবরস্থানে, মায়ের কবরের পাশে কবরস্থ করা হচ্ছে তাকে। পরিবারের সিদ্ধান্তে তার মায়ের কবরের পাশে তার শেষ ঠিকানা হচ্ছে। এই এনায়েত বাজারেই তার জন্ম আর বেড়ে ওঠা।
২০শে অক্টোবর (শনিবার) সকাল নাগাদ আরেকটি জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশেই সমাহিত করা হবে আইয়ুব বাচ্চুকে।